Aug 24, 2011

হারিয়ে যাওয়া কবিদের প্রতি

আমার যে কতো মনখারাপ, তা যদি তুমি জানতা, তাইলে আমার জন্য নিয়া আসতা চাঁদ, এক পাত্র শিশির, শিশিরের মধ্যে পদ্ম। ধূসর দেয়ালগুলি ভেঙে জানলা বানিয়ে দিতা, আর জানলা বেয়ে লাগিয়ে দিতা মাধবিলতার লতা। অন্তত একটা হিরামন পাখিও তো এনে দিতে পারতা, গান গেয়ে মন ভুলাতো। এখন যদি আমি বাস্তুসাপটিকে বিষ দিই, আমাকে দোষ দিও না। এখন যদি মেনি বিড়ালের ছানাটিকে উড়িয়ে নিয়ে যায় ড্রাগন, আমাকে দোষ দিওনা। কালকে আমি ডিঙায় চড়ে তোমাদের দেশ থেকে অনেক দূরে চলে যাবো।

2 comments:

jonantik said...

ফেসবুকের স্ট্যাটাস হিসাবে এই লেখাটা পড়ার পরই বলছিলাম এইটা দুর্দান্ত একটা লেখা হইসে। শুনলাম আজকে বোর্হসের জন্মদিন। আজকাল তো জাদুবাস্তবতার কথা উঠলেই বোর্হেস-মার্কেজ-শহীদুল জহির, এই চক্করের নাম বলে উঠে। এই লেখাটা জাদুবাস্তব নাকি জানি না, তবে আমি এমনটাই ফিল করলাম আর কি।

এখন যদি মেনি বিড়ালের ছানাটিকে উড়িয়ে নিয়ে যায় ড্রাগন, আমাকে দোষ দিওনা।

এই লাইনটার চে বড় জাদুবাস্তবতার প্রমাণ কী হইতে পারে... হঠাৎই খারাপ লাগলো এই জন্য যে, আমরা যেই পৃথিবীতে থাকি সেইখানে উদ্ভট কঠিন ইংরেজি শব্দের ভোকাবুলারি আছে, অথচ কোন ড্রাগন নাই !

অন্দ্রিলা said...

ড্রাগনের কথাটা সম্ভবত আরেকজনের ফেবু স্ট্যাটাসের প্রভাবে এসেছেঃ এই বই ও বাবুসমাজের বাইরে, একটা ড্রাগন তার পিঠে করে আমায় কোথাও উড়িয়ে নিতে চেয়েছিল।

ড্রাগন না থাকলে না থাকলো, জ্যান্ত প্রানীর ম্যালা ঝামেলা, একটা ম্যাজিক কার্পেট বা গুপিবাঘার জুতা থাকলেও হইতো।

লেখায় প্রেম নাই তবে ধারণা করা হয় কমেন্টে প্রেম আছে তাই কমেন্ট লেখার চাইতে উত্তম।